দৈনিক ২৪ ঘন্টা, সপ্তাহে ৭ দিন সর্বশেষ সংবাদ নিয়ে

মাদারীপুর ২৪ ডটকম

Ruposhi Online

কালকিনিতে আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে জ্যেষ্ঠতা-কনিষ্টতা লঙ্ঘন

সংশ্লিষ্ট বিভাগ: কালকিনি,প্রধান সংবাদ,মুক্তমত,রাজনীতি,সব সংবাদ |

কালকিনিতে গত তিন দশক ধরে একচেটিয়া রাজত্ব আওয়ামীলীগের। ভোটের বিনিময়ে উন্নয়ন আর উন্নয়নের বিনিময়ে ভোট; সবই আওয়ামী জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে হয়েছে। যদিও আমি এই উন্নয়নে সন্তুষ্ট নই।
প্রায় ২৫ বছর কালকিনিতে আওয়ামীলীগের রাজনীতি আবর্তিত হয়েছে সৈয়দ আবুল হোসেনের নিয়ন্ত্রণে। তিনি যাকে যখন যেভাবে গুরুত্ব দিয়েছেন সে তখন সেভাবেই আওয়ামীলীগের নাটাই ঘুরিয়েছেন।
আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে জ্যেষ্ঠতা লঙ্ঘন মূলত এভাবেই এসেছে। এতে কে কোন পদে আছে সেটা প্রায়ই অবিবেচিত থেকেছে। আওয়ামীলীগের ও সহযোগী সংগঠনের কর্মসূচিগুলোতে সহসভাপতি, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক, সাংগঠনিক সম্পাদক পদগুলো উহ্য থাকতেই দেখা গেছে। এরা অনেক সময় নিজেরা পিছিয়ে থেকে পিছনে পড়েছে আবার কেউ কেউ জ্যেষ্ঠতা লঙ্ঘনের কারণে নিস্ক্রিয় থেকেছে। তবে অনেকেরই অভিযোগ, তাদের মূল্যায়ন করা হয়নি। তবে সৈয়দ আবুল হোসেনের রাজনীতিতে কালকিনিতে একটি বিষয় লক্ষ্যণীয় ছিল- কর্মসূচি বা অনুষ্ঠান চলাকালিন কখনো জ্যেষ্ঠতা লঙ্ঘন করতে দেখা যেত না। কিন্তু বর্তমানে জ্যেষ্ঠতা লঙ্ঘন প্রকাশ্য রূপ নিয়েছে যা কালকিনি উন্নয়নের অন্তরায় হয়ে দাঁড়িয়েছে এবং আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে গ্রুপিং তৈরি করছে।
আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক আ.ফ.ম বাহাউদ্দিন নাছিম কালকিনির সংসদ সদস্য থাকাকালিন এবং তাঁর অনুষ্ঠানেই জ্যেষ্ঠতা লঙ্ঘন কখনোই প্রত্যাশা করিনি; আশাকরি, ভবিষ্যতে তিনি আর এটা হতে দিবেন না।
গত ১৮ এপ্রিল উপজেলা আধুনিক অডিটরিয়াম ভবনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান উপলক্ষে মিলনমেলা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অতিমাত্রায় জ্যেষ্ঠতা লঙ্ঘন করা হয়। ফলশ্রুতিতে আওয়ামীলীগের নেতাকর্মী-সমর্থকরা ওই অনুষ্ঠান বর্জন করেন। একটি অনুষ্ঠান আয়োজন করতে গিয়ে প্রশাসনিক কর্মকর্তাদেরও অবমূল্যায়িত করা হলে সেটা কালকিনির উন্নয়নের জন্য সুখকর না হতে পারারই আশঙ্কা থাকে।
গত ২০ জুন কালকিনি মাছ বাজারে বাজার কমিটির উদ্যোগে সংসদ সদস্য আ.ফ.ম বাহাউদ্দিন নাছিমকে সংবর্ধনা দেয়া হয়। এতে উপজেলা চেয়ারম্যানের আগে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদকের নাম এবং উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যানের আগে সাবেক পৌর প্রশাসকের নাম ব্যানারে লেখা ও মাইকে প্রচার করা হয়। এভাবে জ্যেষ্ঠতা লঙ্ঘন করে ওই পদ দুটিকে খাটো করায় পদধারীরা ওইদিন ওই অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকেননি। তারা বিষয়টি বুঝতে পেরে সংসদ সদস্যের অনুষ্ঠান হলেও তারা তা বর্জন করেছেন। অনুষ্ঠানে এভাবে জ্যেষ্ঠতা লঙ্ঘনের কারণ অনুসন্ধানে আমার যতটুকু ধারণা, ওই দুটি অনুষ্ঠানের অতিথিদের নামের তালিকা একজন জনপ্রতিনিধি করেছেন বা তাঁর মতামতে করা হয়েছে। উনি আওয়ামীলীগের পদে না থাকায় মনে হচ্ছে এমনটা করা হচ্ছে। এবং আওয়ামীলীগকে গ্রুপিংয়ের হাত থেকে বাঁচানোর স্বার্থে ওই জ্যেষ্ঠতা লঙ্ঘনে আ.ফ.ম বাহাউদ্দিন নাছিমের মৌন সমর্থন আছে। তবে আমি চাই, আমার এই অনুসন্ধ্যান মিথ্যা প্রমাণীত হোক। যাহোক, সংসদ সদস্য বাহাউদ্দিন নাছিমের হস্তক্ষেপে আর কখনো কোন অনুষ্ঠানে জ্যেষ্ঠতা লঙ্ঘণ হবে না বলে আশা করছি।

বিল্লাল হোসেন, সাংবাদিক

বিল্লাল হোসেন, সাংবাদিক

(লেখক: বিল্লাল হোসেন: ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক, কালকিনি প্রেসক্লাব ও সংবাদদাতা, দৈনিক আলোকিত বাংলাদেশ।)

QR Code - Take this post Mobile!
Use this unique QR (Quick Response) code with your smart device. The code will save the url of this webpage to the device for mobile sharing and storage.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.