দৈনিক ২৪ ঘন্টা, সপ্তাহে ৭ দিন সর্বশেষ সংবাদ নিয়ে

মাদারীপুর ২৪ ডটকম

Ruposhi Online

অবশেষে মাদারীপুর সদর উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের একক প্যানেল

সারা দেশে ৬ষ্ঠ দফা নির্বাচন শেষে ২৬ জুন সপ্তম দফায় দেশের ৩টি উপজেলায় নির্বাচন। তার মধ্যে মাদারীপুর সদর উপজেলা একটি। আওয়ামী লীগ অধ্যুষিত মাদারীপুরে এই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী। এদিকে প্রচারণায় বাঁধা দেয়ার অভিযোগ ও উপজেলা নির্বাচনে সেনাবাহিনী মোতায়েনের দাবী জানিয়েছেন ১৯ দলীয় সমর্থিত জামায়াতের প্রার্থী। এদিকে জেলা রিটার্নিং কমকর্তা জানিয়েছেন নির্বাচনকে সামনে রেখে বিজিবি মোতায়েন করা হবে।
একটি পৌরসভা ও ১৫টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত মাদারীপুর সদর উপজেলায় মোট ভোটার ২ লাখ ৩১ হাজার ৪৮৪ জন। আগামী ২৬ জুন মাদারীপুর সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। এতে চেয়ারম্যান পদে ৪ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৪ জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। নির্বাচনের শুরুতেই চরমুগরিয়া এক আলোচনা সভায় চেয়ারম্যান পদে জামাত নেতা আবুল বাশার, ভাইস চেয়ারম্যান পদে বিএনপি নেতা মনিরুল ইসলাম তুষার ভূইয়া ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে তানিয়া সুলতানা লাইজুকে একক প্যানেল বা প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা দেয় ১৯ দলীয় জোট।
অপরদিকে চেয়ারম্যান পদে পাভেলুর রহমান শফিক খান, ভাইস চেয়ারম্যান পদে সাহাবুদ্দিন হাওলাদার ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে পারভীন জাহান শরীফের পক্ষে আওয়ামী লীগ দলীয়ভাবে একক প্যানেলে প্রচারণায় নেমেছে। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে যুব মহিলা লীগ নেতা আমেনা খাতুন বেবী দলীয় প্যানেলের বাইরে থেকে নির্বাচনী প্রচারণা অব্যাহত রাখলেও ২৩ জুন রাতে পুরান বাজার আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সাথে মত বিনিময় করে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা থেকে সরে দাড়ানোর ঘোষণা দেন।
এছাড়া চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ নেতা ডা. আব্দুল বারি ও স্বতন্ত্র প্রার্থী আসাদুর রহমান খান, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ওয়ার্কার্স পার্টির নেতা এ্যাড. কানাই লাল দাস ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর নেতা মাওলানা আজিজুর রহমান প্রচারণ-প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন।
আষাঢ়ের ঝড়-বৃষ্টি উপেক্ষা করেই চলছে প্রার্থীদের শেষ মূহুর্তের প্রচার-প্রচারণা। গত উপজেলা পরিষদে নির্বাচনের চেয়ে জনগণের স্বতস্ফূর্ত অংশগ্রহণ কম থাকলেও যোগ্য ও দায়িত্বশীল ব্যক্তিকেই নির্বাচনে ভোট দেয়ার আশা ব্যক্ত করেন ভোটাররা।
মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রয়েছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান পাভেলুর রহমান শফিক খান এবং বিএনপিসহ ১৯ দলীয় সমর্থিত প্রার্থী জামায়াত নেতা কাজী আবুল বাশার।
গত ৫ বছরে ব্যাপক উন্নয়ন করেছেন দাবী করে আওয়ামী লীগ অধ্যুষিত মাদারীপুরে শতকরা ৮০ ভাগ ভোট পেয়ে জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী জেলা আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক পাভেলুর রহমান শফিক খানের।
এদিকে বিএনপিসহ ১৯ দলীয় সমর্থিত প্রার্থী জামায়াতের নায়েবে আমীর কাজী আবুল বাশার স্ুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে সেনাবাহিনী মোতায়েনের দাবী করে ইতিমধ্যেই সংবাদ সম্মেলন করেছেন। বর্তমানে তার প্রচার-প্রচারণায় বাধা প্রধানের অভিযোগ করেছেন তিনি। নির্বাচন সুষ্ঠু হলে বিপুল ভোটের ব্যাবধানে জয়লাভের আশা করেন।
রিটার্নিং অফিসার ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) রাহেদ হোসেন জানিয়েছেন, নির্বাচনী আচরণবিধি লংঘনের বিষয়টি পর্যবেক্ষণে ৩ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আলাদা আলাদাভাবে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করছে। এখন পর্যন্ত গুরুতর কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। সেনা মোতায়েন মত কোন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়নি, তবে বিজিবি মোতায়েন করা হবে।
চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান এই ৩টি পদেই একক প্যানেল আকারে প্রার্থী দিয়েছে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি-জামায়াত জোট। প্রচার-প্রচারণাও চলছে প্যানেল আকারে। নির্বাচনে জনগণের উৎসাহ-উদ্দীপনা গতবারের চেয়ে কিছুটা কম থাকলেও সব কিছুর উর্ধ্বে থেকে সুষ্ঠু নির্বাচন দেখতে চায় মাদারীপুর সদর উপজেলার জনগণ।

QR Code - Take this post Mobile!
Use this unique QR (Quick Response) code with your smart device. The code will save the url of this webpage to the device for mobile sharing and storage.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *