দৈনিক ২৪ ঘন্টা, সপ্তাহে ৭ দিন সর্বশেষ সংবাদ নিয়ে

মাদারীপুর ২৪ ডটকম

Ruposhi Online

দক্ষিণ বিরাঙ্গলে নদীভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলো পায়নি সরকারি সহায়তা

সংশ্লিষ্ট বিভাগ: গুরুত্বপূর্ণ খবর,প্রধান সংবাদ,সব সংবাদ |

বিশেষ প্রতিনিধি: মাদারীপুর সদর উপজেলার বাহাদুরপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ বিরাঙ্গল গ্রামে আড়িয়াল খাঁ নদী ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্ত অর্ধশতাধিক পরিবার এখনও পায়নি কোন সরকারি সহায়তা। গত এক যুগেরও বেশি সময় ধরে এখানে নদীভাঙ্গনে ফসলী জমি ও বসতবাড়ি নদীগর্ভে বিলীন হলেও নদীভাঙ্গন থেকে রক্ষার জন্য কোন বাঁধ নির্মাণ করা হয় নি।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আড়িয়াল খাঁ নদীর নতুন রাজারহাট এলাকা থেকে হবিগঞ্জ হাট পর্যন্ত দীর্ঘ প্রায় ৪ কিলোমিটার এলাকায় জুড়ে ভাঙ্গন সৃষ্টি হয়। নদীর বাঁকে মীরবহর বাড়ি এলাকা থেকে মাদবরবাড়ি পর্যন্ত প্রতি বছরের বর্ষা মৌসুমেই ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। অনেক পরিবার তাদের বাড়ি-ঘর ও ফসলী জমি হারিয়ে বর্তমানে নিঃস্ব।
সরেজমিনে জানা গেছে, দক্ষিণ বিরাঙ্গল এলাকার আব্দুর রাজ্জাক বেপারী, সৈয়দ আলী হাওলাদার, নান্নু ঘরামী, সিকিম আলী চৌকিদার, ছাবেদ শেখ, সেহের আলী খান, হযরত আলী খান, ইলিয়াস খান, মনসুর খান, নূর আলম চৌকিদার, লোকমান শেখ, গোপালচন্দ্র দাস, রাধিকা চন্দ্র দাস, উজ্জ্বল ঋষি’র পরিবারসহ আরো অনেকগুলো পরিবার সবচেয়ে বেশি অসহায় অবস্থায় রয়েছে। এই পরিবারের মধ্যে বেশি ভাগই অন্যের জায়গায় বা খোলা জায়গায় পলিথিন বা খড় দিয়ে ছাউনি তুলে কোন মতে বেঁচে আছে।
ইতোমধ্যে সরকারিভাবে মাত্র ২০ কেজি করে চাল ও দুই হাজার টাকা প্রদান করা হলেও তা একটি পরিবারের এক সপ্তাহের খাবার খরচ মাত্র। এলাকাবাসী বিভিন্ন সময় বাঁধ দিয়ে নদীভাঙ্গন প্রতিরোধের দাবী জানালেও এখন পর্যন্ত কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি।
মাদারীপুর সদর উপজেলার বাহাদুরপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সৈয়দ শাখাওয়াত হোসেন সেলিম বলেন, গত এক যুগের বেশি সময় ধরে আড়িয়াল খাঁ নদীর বাহাদুরপুর এলাকায় ভাঙ্গন চলছে। চলতি বছর অর্থাৎ ২০১৭ সালের বন্যার পানির তোড়ে ভাঙ্গন আরো তীব্রতর হয়ে ওঠে। জেলা প্রশাসন থেকে উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা বিভিন্ন সময় ভাঙ্গন কবলিত এলাকা পরিদর্শন করলেও ভাঙ্গনের তান্ডব প্রতিরোধে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি। দ্রুত কার্যকরী ব্যবস্থা নিতে এলাকাবাসী সরকারের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন। (তথ্যসূত্র: দৈনিক বিশ্লেষণ, মাদারীপুর) 

* নদী ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্ত দক্ষিণ বিরাঙ্গল গ্রামের কিছু দৃশ্য:

QR Code - Take this post Mobile!
Use this unique QR (Quick Response) code with your smart device. The code will save the url of this webpage to the device for mobile sharing and storage.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *