1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : Amirath Sadia : Amirath Sadia
নারী শিক্ষা কিভাবে পরিবারের উন্নয়নে ভূমিকা রাখতে পারে?
শুক্রবার, ১৩ মে ২০২২, ০৪:১৩ অপরাহ্ন
ব্রেকিংঃ
পাঁচখোলা ইউনিয়নে দুস্থদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ নারী শিক্ষা কিভাবে পরিবারের উন্নয়নে ভূমিকা রাখতে পারে? মাদারীপুরে মাসব্যাপী চলা ব্যাডমিন্টন খেলার সমাপনী আসর অনুষ্ঠিত হয়েছে আসামি শনাক্তকারীকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে দুই পা ভেঙে দিয়েছে আসামিপক্ষ কানাডায় ঢুকতে পারেন নি এমপি ‍মুরাদ, সম্ভাব্য গন্তব্য দুবাই মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস নিয়ে তৈরী হবে মোবাইল অ্যাপলিকেশন শিবচরে দাদন চোকদার হত্যা মামলার আসামি গ্রেফতার খেলার মাঠে পাকিস্থানী পতাকা উড়ানো, মুক্তিযুদ্ধের অপমান টুঙ্গিপাড়ায় স্বতন্ত্র ২ প্রার্থীর মনোনয়ন প্রত্যাহার মাদারীপুরে ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো শুরু হচ্ছে

নারী শিক্ষা কিভাবে পরিবারের উন্নয়নে ভূমিকা রাখতে পারে?

  • তারিখ : রবিবার, ২৬ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ৪৮ বার শেয়ার হয়েছে

শেখা আমায় মুক্তি দিবে, মুক্তি…. দিবে – মীনা কার্টুনের সেই মুক্তি মেয়েদের আজো মেলেনি। বিংশ শতাব্দির মাঝামাঝিতে এসেও শিক্ষার সেই মুক্তির জন্য লড়াই করে যেতে হয় প্রায় প্রতিটি মেয়ে শিশুরই।

অথচ একটি পরিবারের সুরক্ষায় একজন শিক্ষিত নারী একটি সুরক্ষিত দূর্গের মতো কাজ করে। সুশিক্ষিত নারী সুরক্ষিত পরিবারের জন্য খুবই প্রয়োজন। পরিবারের উন্নয়নে নারী শিক্ষার গুরুত্ব বর্ণনাতীত। কথিত আছে “একজন পুরুষ মানুষকে শিক্ষা দেওয়া মানে একজন ব্যক্তিকে শিক্ষিত করে তোলা, আর একজন মেয়েকে শিক্ষা দেওয়া মানে একটি গোটা পরিবারকে শিক্ষিত করে তোলা”।

এই পৃথিবীর অর্ধেক জনসমষ্টি নারী।

তাই মানবজাতির সামগ্রিক কল্যাণে নারী শিক্ষার অবদান অনেক উঁচুতে রয়েছে। একটা পরিবারের সংশোধনে শিক্ষিত নারীদের অবদান অনস্বীকার্য। একজন শিক্ষিত নারী সম্পূর্ণ একটি পরিবারকে শিক্ষিত করতে পারে।

নারী শিক্ষার গুরুত্ব উপলব্ধি করে নেপোলিয়ান বোনাপোর্ট বলেছিলেন “আমাকে শিক্ষিত মা দাও, আমি শিক্ষিত জাতি দেব”। একজন শিক্ষিত নারী যে দায়িত্ব ও ভূমিকা পালন করতে পারে এটা, অনেক ক্ষেত্রে পুরুষদের পক্ষেও সম্ভব হয় না।

একজন নারী শিক্ষিত হওয়ার অর্থ ঐ পরিবারের পরবর্তী প্রজন্ম শিক্ষিত হবে। শিক্ষা অর্জন করে নারী তার অধিকার সম্বন্ধে সচেতন হতে পারে, স্বাস্থ্য সচেতন হতে পারে। আর একজন স্বাস্থ্য সচেতন নারী সর্বদা তার মা, বোন, ভাই, স্বামী, সন্তানসহ পরিবারের সকলকে সুরক্ষিত রাখতে চেষ্টা করেন।

আজকের শিশু, আগামী দিনের ভবিষ্যৎ!

কিন্তু এই শিশুর ভবিষ্যৎ নির্ভর করে তার মা ও পরিবার তাকে কিভাবে চালনা করছে তার উপর। সন্তানেরা জন্মের পর থেকে মায়ের সংস্পর্শেই বেশিরভাগ সময় থাকে। মায়ের আচার-আচরণ, চালচলন, কথাবার্তা সবকিছু, সন্তানকে প্রভাবিত করে।

মায়ের হাতেই সন্তানের শিক্ষার হাতে খড়ি হয়। মা যদি শিক্ষিত হন তাহলে সন্তান অবশ্যই শিক্ষিত হবে। আর মা যদি নিজেই শিক্ষার আলো থেকে বঞ্চিত হয়ে থাকেন তাহলে সেই সন্তানের ভবিষ্যতও খুব বেশি ভালো হবে না।

একটি পরিবারের সচ্ছলতার জন্য একজন নারীকে শিক্ষিত ও স্বাবলম্বী হওয়া দরকার। আমরা প্রায়ই দেখি পরিবারের কর্মক্ষম বা উপার্জনক্ষম ব্যক্তি যদি অসুস্থ হয়ে পড়েন বা মৃত্যু বরন করেন তাহলে ঐ পরিবারটি অনেক ভেঙে পড়ে। পরিবারটির দেখভাল করা, চাহিদা মেটানো কষ্টকর হয়ে যায়।

আর্থিক সঙ্কট মোকাবেলা করার জন্য তখন শুধুমাত্র একজন শিক্ষিত নারীই পরিবারের পাশে দাঁড়াতে পারে। তাই প্রত্যেকটি নারীর স্বাবলম্বী হওয়া প্রয়োজন। আর তাই নারীর প্রয়োজন কর্মসংস্থান। যুগোপযোগী কর্মসংস্থানের জন্য শিক্ষার গুরুত্ব অপরিসীম।

একটি সাক্ষাৎকারে মাদারীপুরের ঘুনিয়াকুল গ্রামের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা শামীমা সীমা বলেন, তার স্বামী চাকরি ছেড়ে দিয়ে বিদেশ থেকে যখন দেশে ফিরে আসেন, তখন স্বামী ও তিন সন্তানসহ পরিবার চালানো তার জন্য কষ্টকর হয়ে যায়। কোনোভাবেই যেন সন্তানদের চাহিদা, মাসিক খরচ সামলে উঠতে পারছিলেন না তিনি।

তিনি সিদ্ধান্ত নেন পরিবারের গৃহস্থলি কাজের পাশাপাশি তিনি নিজেই চাকরি করবেন। মাধ্যমিক পাস করা শামীমা আবার বই হাতে তুলে নেন। বাড়ির পাশেই প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষকতা শুরু করেন। পাশাপাশি বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান থেকে আয়োজিত সেমিনারে অংশগ্রহণ করে প্রশিক্ষণ নিয়ে গবাদি পশু পালন শুরু করেন। এখন তিনি নিজে স্বাবলম্বী হয়ে পরিবারের বাকিদের এবং অন্যান্য নারীদের শিক্ষা গ্রহণ করার জন্য উৎসাহিত করেন।

প্রথমদিকে প্রত্যন্ত গ্রামের মধ্যে একজন স্ত্রীর চাকরি করা কেউ যেন ভাল চোখে দেখেননি। শাশুড়ি, পাড়া-প্রতিবেশীসহ বিদ্যালয়ের অন্যান্য শিক্ষকরাও স্বাভাবিকভাবে নিতে পারেনি তার সফলতাকে। তবে ধীরে ধীরে সবকিছু এখন স্বাভাবিক পর্যায়ে চলে এসেছে। এখন চাকরি করে,সংসার সামলে শামীমা যখনই অবসর পায় তখনই সন্তানদের শিক্ষা দানে এবং নিজে বই পড়তে ব্যস্ত হয়ে পড়েন।

তাহলে বুঝতেই পারছি শিক্ষা গ্রহণের ফলে একটি নারী কিভাবে তার পরিবারের জীবনমান উন্নত করে দৃষ্টিভঙ্গি বদলে দিয়েছে। আজও পরিবারে, কর্মক্ষেত্রে, রাস্তাঘাটে নারীদের নির্যাতন ও হয়রানির শিকার হতে দেখা যায়।

ফেসবুকের ইনবক্স গুলো প্রায়ই নারী ব্যবহারকারীদের জন্য আতঙ্কের নাম হয়ে ওঠে। অনেক সময় নারীর গুরুত্বপূর্ণ মতামতকেও প্রাধান্য দেওয়া হয় না। নারীর এই সকল সমস্যা রোধ করতে শিক্ষাই হতে পারে তার একমাত্র হাতিয়ার। বৈষম্যের শিকার এসব নারীরা যদি শিক্ষিত হয়ে থাকে তাহলে তারা যেকোন কর্ম করে বাঁচতে পারবে, পরিবারকে ভরসা দিতে পারবে।

পরিবারের গৃহস্থালী কাজের দিকে তাকালেও দেখা যায় নারী শিক্ষার গুরুত্ব অপরিসীম।

শিক্ষিত নারীরা পরিবারের কারো অসুখে-বিসুখে যেভাবে স্বাস্থ্যবিধি অনুযায়ী সেবা-শুশ্রূষা ও সংসারের প্রাত্যহিক আয়-ব্যয়ের হিসাব নিকাশ করতে পারে, অশিক্ষিত নারীরা সেভাবে করতে পারে না। শিক্ষিত নারীর হাতে যদি সংসারের ভার ন্যস্ত থাকে তাহলে সংসারে উন্নতি হবেই। তাই মেয়েদের শিক্ষাগ্রহণ অত্যাবশক।

গতবছর করোনা মহামারীতে করোনা আক্রান্ত হয়ে রিনা বেগমের স্বামী মৃত্যুবরণ করলে পরিবারে চরম দুর্ভোগ নেমে আসে। দুই কন্যা ও পুত্র নিয়ে তিনি অসহায় হয়ে পড়েন। পরিবারের এই দুঃসময়ে বড় কন্যা সায়মা রহমান পরিবারের পাশে দাঁড়ান। শহরে এসে টিউশনি করে নিজের পড়াশোনার ও পরিবারের খরচ জোগান তিনি।

এছাড়াও অনলাইনে একটি ব্যবসা শুরু করেছেন কিছুদিন হয়। শিক্ষার বদৌলতে সায়মার পরিবারকে আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। শিক্ষা গ্রহণ করার ফলে পরিবারের দুঃসময়ে সায়মার এই পাশে দাঁড়ানোকে এখন সবাই উৎসাহ হিসেবে নেয়। সকলেই সায়মাকে এখন সম্মান করে।

বাংলাদেশের সংবিধানে নারী-পুরুষের সমঅধিকার স্বীকৃতি দেয়া হলেও ঘরে-বাইরে সবখানেই নারীরা প্রতিনিয়ত নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। নারীর প্রতি সহিংসতার আইন থাকলেও, অধিকাংশ নারীই সেই আইন সম্বন্ধে অসচেতন। শিক্ষা গ্রহণ করলে নারীরা এই আইন সম্পর্কে জানতে পারবে, নিজেদের অধিকার আদায় করতে পারবে। নিজেদেরকে দক্ষ করে তুলতে অবশ্যই নারীদের শিক্ষার সংস্পর্শে আসতে হবে। একটি পরিবারকে, সংসারকে সুন্দরভাবে ও সঠিক পথে চালনা করার জন্য এবং পরিবারের উন্নয়নের জন্য নারী শিক্ষার গুরুত্ব সর্বাধিক।

লিখেছেন –

আমিরাত সাদিয়া, ১০ম শ্রেণী

ডনোভান সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়

মাদারীপুর সদর, মাদারীপুর।

শেয়ার করুন

আরো পড়ুন
প্রকাশক কর্ত্বক সর্বস্বত্ত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া সাইটের ছবি, কন্টেন্ট ব্যবহার বেআইনি।
Theme Customized By BreakingNews